ad
ad

Breaking News

France Prime Minister

France Prime Minister: ফ্রান্সের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী পদে প্রার্থী হবেন কে? জল্পনা তুঙ্গে

চলতি সপ্তাহেই প্রধানমন্ত্রী পদের প্রার্থী ঘোষণা হতে চলেছে ফ্রান্সে। ফ্রান্সের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পেয়েছে বামপন্থী নিউ পপুলার ফ্রন্ট।

Who will be the next Prime Minister of France

ছবিঃ সংগৃহীত

Bangla Jago Desk: চলতি সপ্তাহেই প্রধানমন্ত্রী পদের প্রার্থী ঘোষণা হতে চলেছে ফ্রান্সে। ফ্রান্সের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পেয়েছে বামপন্থী নিউ পপুলার ফ্রন্ট। কার্যত মঙ্গলবারই পার্লামেন্টে ‘ওরিয়েন্টেশন সেশন’-এর জন্য পৌঁছলেন সদস্যরা। পার্লামেন্টে ফিরলেন ফ্রান্সের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলান্দ-ও। ফরাসি পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে আসন সংখ্যা ৫৭৭টি। যার মধ্যে নিউ পপুলার ফ্রন্ট জিতেছে ১৮২টি আসনে। অন্য বামপন্থী দলগুলির আসন সংখ্যা ১২, বামপন্থীদের হাতে সর্বমোট রয়েছে ১৯৪টি আসন।

এদিনের আলোচনায় বারংবার উঠে এসেছে শরিকি বোঝাপড়া ও জোট গঠনের বিষয়টি। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাকরঁর দল জিতেছে ১৬৮টি আসন। মারিন ল্য পেন-এর ন্যাশনাল র‌্যালি ১৪৩টি আসনে জয় পেয়েছে। নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে অন্তত ২৮৯টিতে জেতা দরকার, যা কোনও দলেরই নেই।

প্রধানমন্ত্রীর পদে কে নিযুক্ত হবেন , তা নিয়ে এখন জল্পনা তুঙ্গে। নিউ পপুলার ফ্রন্টের গ্রিন পার্টি, সোশ্যালিস্ট পার্টি, কমিউনিস্ট ও অতি-বাম ফ্রান্স আনবাওড (এলএফআই)-এর সদস্যদের মধ্যে এখনও এই নিয়ে আলোচনা অব্যাহত। সোশ্যালিস্ট পার্টির অলিভিয়ে ফোরের দাবি, তিনিই হতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী পদের প্রার্থী।

অপরদিকে, ফ্রান্সের রিপাবলিকান পার্টির নেতা এরিক সিয়োতি সংবাদমাধ্যমকে জানান, তাঁর দলের উচিত মারিনের সঙ্গে জোট তৈরি করা। যদিও, এই প্রস্তাবে দল সহমত নয়। তবে, এই সপ্তাহের শেষেই প্রধানমন্ত্রী পদে প্রার্থীর নাম প্রকাশিত হবে , এমনটাই প্রশাসনিক সূত্রে খবর।

তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, জরুরি ভিত্তিতে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির এই নির্বাচনের ঘোষণা করে আদতে ‘কপাল পুড়েছে’ মাকরঁর। নয়া সরকার গড়তে এখন বামপন্থীদের সঙ্গে হাত মেলানো ছাড়া উপায় নেই। যার প্রভাব পড়বে ২০২৭ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে।